ট্যাগ আর্কাইভঃ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস ২০১৬ : সেমিনার এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন

An autistic student is seen taking part in danceঢাকা,  ০২ এপ্রিল ২০১৬: বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস  উপলক্ষে গত ০২ এপ্রিল ঢাকাস্হ জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র এবং আনন্দ নিকেতন ইউরোপিয়ান স্কুল (এএনইএস) যৌথভাবে স্কুলের আলোচনা কক্ষে এক সেমিনার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে স্কুলের চেয়ারপার্সন ড. মাহমুদুল হাসান উদ্বোধনি বক্তব্য প্রদান করেন এবং মনোবিজ্ঞানী ও অটিজম বিশেষজ্ঞ মিস নারসিস রহমান মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন। ঢাকাস্হ জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান তার বক্তব্যে অটিস্টিক ব্যাক্তিদেরকে মূলধারায় সম্পৃক্তকরনে নীতি নির্ধারক, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এবং ব্যাবসায়িক মহল সহ সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে তথ্য কেন্দ্রের কর্মকর্তা মিস মমতাজ বেগম দিনটি উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিবের বাণী পাঠ করেন এবং আনন্দ নিকেতন ইনক্লুসিভ স্কুলের সমন্বয়ক মিস রোমেলা মুর্শেদ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।  অনুষ্ঠানে  ইনক্লুসিভ স্কুলের শিশুরা নাচ ও সঙ্গীত পরিবেশন করে। এতে শিক্ষার্থী, অভিভাবক , শিক্ষক ও অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অটিষ্টিক শিশুদের অংশগ্রহণে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উদযাপন


Warning: A non-numeric value encountered in /home/unicwp/public_html/wp-content/plugins/lightbox-gallery/lightbox-gallery.php on line 570

01ঢাকা, ৫ এপ্রিল ২০১৫: বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকাস্হ জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র এবং বাংলাদেশ প্রতিবন্ধি ফাউনডেশন যৌথভাবে অটিষ্টিক আক্রান্ত শিশুদের অংশগ্রহণে বিপিএফ অডিটোরিয়ামে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্র প্রদর্শনী এবং আলোচনা সভার আয়োজন করে। উদ্বোধনী বক্তব্যে জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান অটিষ্টিক সংক্রান্ত চ্যালেজ্ঞসমূহ মোকাবেলায় কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণে নীতিপ্রনেতা এবং স্বেচ্ছাসেবা সংগঠনসমূহকে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান। বিপিএফ এর নিবার্হী পরিচালক ডাঃ শামিম ফেরদৌস এর সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে ঢাকা আহছানিয়া মিশনের পরিচালক (কমিউনিকেশন) কাজী আলী রেজা প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। বক্তাগণ তাদের বক্তব্যে অটিজম সমস্যার বিভিন্নদিক তুলে ধরেন এবং এর সচেতনতার উপর গুরুত্বারোপ করেন। অটিজম আক্রান্ত শিশুদের অংশগ্রহণে নৃত্যানুষ্ঠান এবং সঙ্গীত পর্ব অনুষ্ঠিত হয় যেখানে দুই শতাধিক শিশু, অবিভাবক, শিক্ষক এবং অতিথি উপস্হিত ছিলেন।

বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা, চিত্র ও হস্ত শিল্প প্রদর্শনী এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন-৩ এপ্রিল ২০১৪


Warning: A non-numeric value encountered in /home/unicwp/public_html/wp-content/plugins/lightbox-gallery/lightbox-gallery.php on line 570

01ঢাকাস্থ জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র ও বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশন (বিপিএফ) যৌথভাবে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকাস্থ বিপিএফ অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা অনুষ্ঠান, চিত্র ও হস্ত শিল্প প্রদর্শনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বিপিএফ-এর নির্বাহী পরিচালক ড. শামিম ফেরদৌস-এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান। দর্শকদের মাঝে “অটিষ্টিক স্পেক্টার্ম ডিসঅর্ডারের” উপর একটি ভিডিও দেখানো হয়। দিবসটি উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুনের বাণী বাংলায় পাঠ এবং অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের এর কপি বিতরন করা হয়। এছাড়াও অটিষ্টিক স্কুলের শিশুদের অংশগ্রহণে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান অনুষ্ঠানের শুরুতে এক চিত্র ও হস্ত শিল্প প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে প্রায় তিন শতাধিক অটিষ্টিক শিশু ও তাদের অভিভাবকেরা অংশগ্রহণ করেন।

জাতিসংঘ দিবস উপলক্ষে সেমিনার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান


Warning: A non-numeric value encountered in /home/unicwp/public_html/wp-content/plugins/lightbox-gallery/lightbox-gallery.php on line 570

ঢাকা, ২৪ অক্টোবর ২০১৩: বাংলাদেশস্থ জাতিসংঘ কান্ট্রি টিম জাতিসংঘ দিবস পালন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সন্মেলন কেন্দ্রে গত ২৪ অক্টোবর এক সেমিনার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বাংলাদেশস্থ জাতিসংঘের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক সমন্বয়কারী  ড. তুষারা ফার্নান্দো’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পররাষ্ট্র্র মন্ত্রী ডা: দিপু মনি।  বাংলাদেশের প্রখ্যাত সমাজকর্মী ও শিক্ষক অধ্যাপক আবদুলাহ আবু সাঈদ বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন। জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের অধিকর্তা কাজি আলি রেজা দিবসটির প্রতিপাদ্য – উন্নয়নে যুবসমাজ: প্রেক্ষিত বাংলাদেশ – বিষয়ে বক্তব্য রাখেন।  এছাড়া একজন যুব প্রতিনিধিও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। এক হাজারেরও অধিক জাতিসংঘ কর্মী, কুটনিতিক, যুবক, সুশীল সমাজ এবং সরকারী ও বেসরকারী প্রতিনিধি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন  করেন।  অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জাতিসংঘ দিবসটি আয়োজনে জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র কমিউনিকেশন সচিবালয় সেবা প্রদান করে।