ট্যাগ আর্কাইভঃ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জ্ঞাপন: আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

01ঢাকা, ২১শে ফেব্রুয়ারি: ভাষার জন্য জীবন উৎসর্গকারী সকল ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জ্ঞাপন করে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ইউনেস্কো বাংলাদেশ, ঢাকাস্হ জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র ও ড্যাফডিল ইন্টা্রন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি যৌথভাবে এক সেমিনার ও সাংস্কৃ্তিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ড্যাফডিল ইন্টা্রন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য আধ্যাপক ডঃ লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির (বাংলাদেশে ইউনেস্কো প্রতিনিধি বিট্রীস কালদুন) বক্ত্বব্য পাঠ করেন ইউনেস্কো প্রোগ্রাম অফিসার কিজি তাহনীন। এছাড়া অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ড্যাফডিল ইন্টা্রন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য গোলাম রহমান এবং বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকাস্হ জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজামান। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্হা্পন করেন ভাষা গবেষক অধ্যাপক ডঃ বেগম জাহান আরা। তিনি সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রমিত রূপ ব্যবহারের উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন মাতৃভাষায় পারদর্শিতা থাকলে পৃথিবীর যে কোন ভাষা আয়ত্ব করা সম্ভব। এর আগে ড্যাফডিল ইন্টা্রন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের চিত্র কর্ম দ্বারা একটি প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। ড্যাফডিল ইন্টা্রন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাংস্কৃ্তিক সংগঠন “অল স্টার ড্যাফডিল” কতৃক একটি নাটিকা পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়। ইউটিউব:  youtube

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান – ২৩শে ফেব্রুয়ারি ২০১৪

ঢাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি: আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র ঢাকা ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভাসিটি ২৩শে ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে তরুন প্রজন্মের মাঝে পৃথিবীর সকল মাতৃভাষাকে রক্ষা, সংরক্ষন, উন্নয়ন এবং সমুন্নত রাখার ব্যাপারে সচেতনতা তৈরির উদ্দেশ্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি মিলনায়তনে যৌথভাবে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনষ্টিটিউটের মহাপরিচালক এবং মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ডঃ আমিনুল ইসলাম। সন্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউনেস্কোর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কিচি অইয়াচু। জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুনের বাণী পাঠ করেন । অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের মাঝে জাতিসংঘ মহাসচিবের বাণীর কপি বিতরন করা হয়। জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্রের সাবেক অধিকর্তা কর্মকর্তা কাজী আলী রেজা অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। প্রায় দুই শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করে। ইউনেস্কোর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কিচি অইয়াচু ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ভাষা ইনষ্টিটিউটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বিদেশি ছাত্র-ছাত্রীরা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করে। এর আগে অনুষ্ঠিত ভাষা চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরন করা হয়।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুনের বাণী – ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৪

banner_IMLD_drupal_en

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটি ভাষাগত ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র, পাশাপাশি বহুভাষাবাদকে শান্তি ও স্থিতিশীল উন্নয়নের শক্তি হিসেবে উৎযাপন করা হয়।

যখন আমরা ২০১৫-উত্তর স্থিতিশীল উন্নয়নের লক্ষ্য নির্ধারনের প্রচেষ্টায় সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কাজ করছি, এই বৈচিত্র তখন সংলাপ, পারস্পরিক বোঝাপড়া, উদ্ভাবন ও সৃজনশীলতায় উৎসাহ যোগাতে পারে। অপর দিকে, এটা ন্যায় এবং অংশগ্রহনমূলক সমাজ নির্মাণে আমাদেরকে সাহায্য করতে পারে। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি নেলসন ম্যান্ডেলা একবার বলেছিলেন, আপনি যদি একজন লোকের সাথে একটি ভাষায় কথা বলেন যা তিনি বোঝেন, তবে সেটি তার মস্তিষ্কে প্রবেশ করে, আর আপনি তার নিজের ভাষায় কথা বলেন, তবে সেটি তার হৃদয়ে প্রবেশ করে।

এ বছর দিবসটি উদযাপনের ক্ষেত্রে এর প্রতিপাদ্যে বিজ্ঞানকে এগিয়ে নিতে স্থানীয় ভাষার সক্রিয় ভূমিকার প্রতি আলোকপাত করা হয়েছে। এতে সর্বশেষ বৈজ্ঞানিক জ্ঞান আরও ব্যাপকভাবে বিতরণ নিশ্চিত করতে সাহায্য করবে। একই সাথে, এটি অধিক প্রথাগত কিন্তু প্রায়ই অবহেলিত প্রজ্ঞাসহ আমাদের বৈশ্বিক জ্ঞানভান্ডারকে গভীরতর ও উৎকর্ষ সাধনে সহায়তা করবে।

আসুন, আমরা সবাই সবার জন্য সুন্দরতর পৃথিবী ও মর্যাদাপূর্ণ জীবন নির্মাণে আমাদের উদ্যাগের মূল উপাদান ভাষাগত বৈচিত্র ও বহুভাষাবাদকে এগিয়ে নিতে আমাদের সকল শক্তি নিয়োগ করি।